Suzuki Bangladesh
হেলমেটের সকল খুঁটিনাটি (পর্ব ৩ - হেলমেট পরিচর্যা) - দেশি বাইকার

হেলমেটের সকল খুঁটিনাটি (পর্ব ৩ – হেলমেট পরিচর্যা)

Tourino Tyres

হেলমেট হল মোটরসাইকেল রাইডিংয়ের সবচেয়ে প্রয়োজনীয় রাইডিং কিটস। অন্যান্য যেকোন রাইডিং কিটসের চাইতে একজন রাইডারের সুরক্ষার জন্য হেলমেট সবথেকে গুরুত্বপুর্ন ভূমিকা পালন করে। হেলমেট শুধুমাত্র একজন রাইডারের মাথাকেই রক্ষা করে না বরং রাইডিংয়ের সময় ধুলাবালি এবং পোকামাকরের আঘাত থেকে মুখ-মন্ডলকে রক্ষা করে। আমরা যে কোন রাইডিং কন্ডিশনেই হেলমেট ব্যবহার করি, সেটা হোক প্রচন্ড গরমে, বর্ষাকালে, কিংবা শীতকালের ঘন কুয়াশার মাঝে। যেকোন প্রতিকূল রাইডিং পরিস্থিতিতে অন্যতম ভরসার নাম হল হেলমেট।

ঝড়, বৃষ্টি, রোদ, কুয়াশার মত প্রতিকূল পরিস্থিতিতে আমাদের সুরক্ষা প্রদানকারী হেলমেটের পরিচর্যা আমরা কতজন করি, কিংবা কতটুকুই জানি? রাইডিংয়ের সময় হেলমেট যেমন আমাদের প্রতিকূল পরিস্থিতি থেকে আমাদের রক্ষা করে ঠিক তেমনি ধীরে ধীরে এর সক্ষমতা হারায়। রাইডিংয়ের সময় আমাদের শরীরের ঘাম এবং তেল হেলমেটের প্যাড শোষন করে নেয়, এছাড়া এর বাইরের শেল এবং ভাইসর ধুলোবালির সংস্পর্শে এসে ময়লা হওয়া শুরু করে। যদি সময়মত এবং নির্দিস্ট সময় পর হেলমেটের পরিচর্যা না করেন তাহলে আপনার সখের হেলমেটটি ্ধীরে ধীরে ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পরবে।

অনেক স্বনামধন্য, বিশেষজ্ঞ রাইডারদের মতে, ‘আপনার মটোরসাইকেলের পরই রাইডিং কিট হিসেবে আপনার হেলমেট সব থেকে দামি হওয়া উচিৎ। কারন যে কোন অনাকাঙ্ক্ষিত দূর্ঘটনায় হেলমেটই আপনাকে সর্বোচ্চ সুরক্ষা প্রদান করবে’। তাই আপনার সখের হেলমেটটির সঠিক পরিচর্যা সম্পর্কে আপনার জানা উচিৎ। আজ এই কন্টেন্টের মাধ্যমে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করব, কিভাবে হেলমেটের পরিচর্যা করবেন, হেলমেট পরিস্কারের সময় কি কি বর্জনীয় এই বিষয়গুলো।

করনীয় এবং বর্জনীয়ঃ

সঠিকভাবে হেলমেট পরিস্কারের কিছু নির্দিস্ট নিয়ম এবং উপকরন রয়েছে। অনেক ক্ষেত্রেই হেলমেট পরিস্কারের সময় আমরা কিছু সাধারন ভুল করে থাকি। এই ভুল গুলোর জন্যে হেলমেটে কিছু দৃশ্যনীয় এবং কিছু অভ্যান্তরীন ক্ষতি হয়। তবে চলুন জেনে নিই হেলমেট পরিস্কারের সময় কি কি করনীয় এবং বর্জনীয়। ]

করনীয়ঃ 

  • হেলমেটের লিনার পরিস্কার করার সময় অবশ্যই নরম সাবান দিয়ে পরিস্কার করবেন। যেমনঃ বেবি শ্যাম্পু, কাপড় ধোয়ার ডিটারজেন্ট ইত্যাদি। এছাড়াও বাজারে হেলমেট পরিস্কার করার জন্য লিকুইড পাওয়া যায়, যা আপনি পছন্দমত ক্রয় করতে পারেন।
  • হেলমেট পরিস্কারের সময় অবশ্যই নরম এবং স্ক্রাচ-ফ্রি মাইক্রো-ফাইবার তোয়ালা ব্যবহার করুন।
  • ভাইসর পরিস্কারের সময় বেশি চাপ প্রয়োগ করবেন না। ভাইসর যদি খুব বেশি ময়লা হয়ে থাকে তাহলে তোয়ালেটি কিছুক্ষন গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন এবং পরবর্তিতে সেটি ভাইসরের উপর রেখে দিন।
  • হেলমেটের ভেন্টিলেশন এবং যে যায়গা গুলোতে জয়েন্ট রয়েছে সেখানে কটন বার ব্যবহার করুন।
  • লিনার এবং প্যাডিংগুলো পুনরায় ফিটিং করানোর আগে ভালভাবে শুকিয়ে নিন। প্রয়োজন পরলে ফ্যান ব্যবহার করুন।
  • হেলমেটের যে পার্টসগুলো মুভ করা যায়, যেমন ভাইসরের ফিটিংয়ের যায়গায় প্রয়োজন পরলে সিলিকন লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করতে পারেন।
  •  চাইলে আপনি ব্যন্ডানা পরতে পারেন। এতে প্যাডিং ময়লা হওয়ার হার হ্রাস পাবে।

বর্জনীয়ঃ

  • ভাইসর কিংবা বাইরের শেলে কিছু লেগে গেলে ঘসা-মাজা করবেন না।
  • পেট্টোলিয়াম জাতীয় কোন কিছু দিয়ে হেলমেট পরিস্কার করবেন না।
  • গ্লাস ক্লিনার এবং এমোনিয়া জাতীয় পদার্থ দিয়ে ভাইসর পরিস্কার করবেন না। কেননা এমোনিয়া পলিকার্বোনেট লেন্সের অণুগুলো ভেঙ্গে ফেলে এবং ধীরে ধীরে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পরে।
  • ডিস ওয়াসার কিংবা সস্তা ডিটারজেন্ট দিয়ে লিনার এবং প্যাডিং পরিস্কার করবেন না।
  • ফেব্রিকের কোন কাপড় দিয়ে পরিস্কার করা থেকে বিরত থাকুন। কেননা, এতে হেলমেটের ভাইসর এবং বাইরের শেলে দাগ পড়তে পারে।
  • ওয়াশিং মেশিনে হেলমেটের প্যাডিং পরিস্কার করবেন না।

সাধারনত হেলমেট পরিস্কারের সময় দুই ধরনের হেলমেট লক্ষ্য করা যায়। একটি হল অপসারনযোগ্য প্যাডিং আর একটি হল ফিক্সট প্যাডিং। যে সকল হেলমেটের প্যাডিং খোলা যায় সেই হেলমেটগুলো পরিস্কার করা তুলোনামূলক সহজ তবে যে হেলমেটগুলোর প্যাডিং খোলা যায় না সেগুলো পরিস্কার করতে কিছুটা বাড়তি কাজ করতে হয়। তবে চলুন জেনে নিই কিভাবে হেলমেট পরিস্কার করবেন।

লিনার এবং প্যাডিংঃ

  • হেলমেট থেকে সতর্কতার সাথে লিনার এবং প্যাডিং খুলে নিন। তবে লক্ষ্য রাখবেন প্যাডিংগুলো কোন প্যাটার্নে ফিটিং করা আছে। যেন পরবর্তিতে সেট করার সময় কোন সমস্যা না হয়।
  • প্যাডিং পরিস্কারে নরম সাবান, যেমনঃ বেবি শ্যাম্পু, কাপড় ধোয়ার ডিটারজেন্ট ইত্যাদি ব্যবহার করুন।
  • এরপর প্যাডিং এবং লিনারের পানি ভালভাবে নিংড়ে নিন এবং শুকানোর জন্য রেখে দিন।

 

বাইরের শেলঃ

হেলমেটের শেল সবথেকে গুরুত্বপূর্ন বস্তু। শেল শুধু আপনাকে আঘাতের হাত থেকেই রক্ষা করে না বরং আপনার রাইডিং কিটের সৌন্দর্য্য গুনে বৃদ্ধি করে। তাই এবার জেনে নেয়া যাক হেলমেটের শেল কিভাবে পরিস্কার করবেন।

  • প্রথমেই হেলমেটের ভাইসর খুলে ফেলুন।
  • হালকা গরম পানি এবং নরম সাবানের একটি মিক্সার তৈরী করুন।
  • মিক্সারে মাইক্রো-ফাইবার তোয়ালে ভিজিয়ে নিন এবং যেখানে ,পোকা-মাকরের দাগ এবং ময়লা জমেছে সেগুলো ভালভাবে পরিস্কার করুন।
  • ভেজা কটন বার দিয়ে হেলমেটের ভিতরের ভেন্টসগুলো পরিস্কার করে নিন।
  • একটি শুকনো মাইক্রো-ফাইবার তোয়ালে দিয়ে ভাইসর এবং শেলটি পরিস্কার করে নিন।
  • ভাইসরে যদি এন্টি-ফগ ভাইসর লাগান থাকে তাহলে পূর্বেই সেটি খুলে ফেলুন এবং আলাদাভাবে পরিস্কার করে লাগিয়ে নিন।

হেলমেটের সঠিক ব্যবহারঃ

হেলমেট পরিস্কারের পর আপনি চাইবেন আপনার হেলমেটটি যেন দীর্ঘ সময় পর্যন্ত ব্যবহার উপযোগী থাকে এবং কোন প্রকার অনাকাঙ্ক্ষিত ক্ষতি না হয়। তাই এখন আপনাদের জানাব হেলমেট ব্যবহারের কিছু টিপস।

  • হেলমেট ব্যবহারের আগে মাথায় একটি ব্যান্ডানা অথবা স্কালমাস্ক পড়তে পারেন। এটি আপনার ঘাম এবং তেল শোষন করবে এবং হেলমেটের প্যাডিংকে রক্ষা করবে।
  • হেলমেট এবং ভাইসর পরিস্কারের জন্য অবশ্যই সাথে একটি সুতি কাপড় অথবা মাইক্রো-ফাইবার তোয়ালে রাখুন।
  • ভাইসরে কোন ময়লা কিংবা পোকামাকড় লেগে থাকলে সেটি ঘষে তুলে ফেলার চেষ্টা করবেন না। দরকার পরলে বাইক থেকে নেমে পানি দিয়ে পরিস্কার করে নিন।
  • দীর্ঘক্ষন বাইক রাইডের পর কখনই হেলমেট ঢুকিয়ে রাখবেন না। এর ফলে হেলমেট থেকে বাজে গন্ধ বের হতে পারে। তাই হেলমেট ব্যবহারের পর সেটি কোন খোলামেলা যায়গায় রাখুন। যেন হেলমেটের ভিতর বাতাস চলাচল করতে পারে।

 

মন্তব্য
Shell Advance

About The Author

Related Posts

error: Content is protected !!
×