শীতকালে মোটরসাইকেল টায়ারের যত্ন

বাংলাদেশের বেশিরভাব রাইডারই লং ট্যুরের জন্য বেছে নেন শীতকালকে। কেননা শীতকালে যেমন রাস্তাঘাটে ট্রাফিক কিছুটা কম থাকে তেমনি প্রকৃতিও সাজে এক অপরুপ সৌন্দর্যে। তবে সঠিক রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে অনেক বাইকেই শীতকালে পার্ফরমেন্সের ঘাটতিসহ নানা ছোটখাট সমস্যা দেখা দেয়। তাই অন্যান্য সময়ের চেয়ে শীতকালে মোটরসাইকেলের আলাদা কিছু যত্ন নিতে হয়।

একটি বাইকের অন্যান্য অংশের মতই টায়ার একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। যার উপর একটি বাইকের সঠিক এবং আশানুরূপ পার্ফরমেন্স অনেকাংশে নির্ভর করে। শীতকালে রাস্তাঘাট তুলনামূলক ভেজা ও পিচ্ছিল হয়ে থাকে। তাই এই সময়ে অবশ্যই আপনার টায়ারের কন্ডিশন ভাল হতে হবে। এছাড়া একটি বাইকের মাইলেজ এবং এক্সেলেরেশন সরাসরি টায়ারের উপর নির্ভরশীল। তাই টায়ারের গুরুত্বকে ছোট করে দেখার অবকাশ নেই। আজ এই কনটেন্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদের জানাব কিভাবে শীতকালে একটি মোটরসাইকেলের টায়ারের যত্ন নিবেন।

নিয়মিত টায়ার প্রেসার পর্যবেক্ষনঃ

শীতকালে নিয়মিত টায়ার প্রেসার পর্যবেক্ষন করতে হবে। কেননা ঠান্ডা আবহাওয়ার কারনে টায়ারের প্রেসার প্রতিনিয়ত কমতে থাকে। প্রতি ১০° সেলসেসিয়াস তাপমত্রা কমে যাওয়ার সাথে সাথে টায়ার থেকে ১ পাউন্ড প্রতি স্কয়ার ইঞ্চি চাপ (PSI) কমতে থাকে। টায়ার প্রেসার কম থাকার ফলে কমে যাওয়ার ফলে শুধুমাত্র বাইকের মাইলেজই কমে না, এর সাথে এটি আপনার টায়ারের ট্রেড ওয়্যার বৃদ্ধি করে এবং বাইকের কন্ট্রোলিংয়ের উপরও প্রভাব ফেলে।

সঠিক মাপের টায়ার ব্যবহারঃ

মোটরসাইকেল ব্রান্ডগুলো তাদের বাইকের টায়ারের সাইজ নির্দিষ্ট করে থাকে। তারা একটি বাইকে দীর্ঘদিন R&D করার পরই টায়ার সাইজ করে থাকে। অনেকেই টায়ারের অধিক গ্রিপ এবং কর্নারিংয়ের আশায় স্টক টায়ার পরিবর্তন করে বেশি সাইজের টায়ার ইন্সটল করেন। এর ফলে বাইকের ব্যালেন্স এবং কন্ট্রোলিংয়ে বেশ প্রভাব পরে। ফলে শীতকালে বাইক স্কীডিং করার প্রবনতা বেড়ে যায়। তাই শীতকালে চেষ্টা করুন স্টক টায়ার ব্যবহার করার।

সঠিক টায়ার নির্বাচনঃ

যারা বেশি বেশি লং ট্যুর করেন তাদের জন্য টায়ার প্যাটার্ন অনেক গুরুত্বপূর্ন। বাজারে বর্তমানে তিন ধরনের টায়ার দেখা যায়, সেগুলো হচ্ছে অফ-রোড, অন-রোড এবং ডুয়েল পারপাস টায়ার। যারা হিলে রাইড করতে পছন্দ করেন তারা ডুয়েল-পারপাস টায়ার ব্যবহার করতে পারেন। কেননা শীতকালে পাহাড়ি রাস্তা অনেকটা ভেজা থাকে, ফলে টায়ারের অধিক গ্রিপের প্রয়োজন হয়। বাংলাদেশি টায়ার প্রস্তুতকারী ব্রান্ড ট্যুরিনো এখন উৎপাদন করছে ২৪ প্যাটার্নের এবং ২৩ সাইজের টিউব টায়ার এবং ১৬ প্যাটার্নের ১৭ সাইজের টিউবলেস টায়ার। যেখান থেকে আপনি পছন্দমত টায়ার নির্বাচন করতে পারেন।

টায়ার ট্রেড পরিক্ষাঃ

অনেকেই একই টায়ার দীর্ঘদিন ব্যবহার করেন। তবে মনে রাখতে হবে একটি টায়ারের নির্দিষ্ট মেয়াদকাল থাকে। টায়ারের ট্রেড অধিক ক্ষয়প্রাপ্ত হলে তা খুব তাড়াতাড়ি পরিবর্তন করাই ভাল। কেননা ভেজা রাস্তায় চলার সময় এই ট্রেডগুলো দিয়ে পানি অতিবাহিত হয়। ফলে ট্রেড ভাল থাকলে ভেজা রাস্তাতেও খুব ভাল গ্রিপ পাওয়া সম্ভব। এছাড়া টায়ারের সাইড-ওয়াল কিংবা নিচের অংশে টায়ার সামান্য পরিমান ফেটে গেলে তা মেরামত না করে পরিবর্তন করাই শ্রেও।

এছাড়া মোটরসাইকেল এমন কোন যায়গায় পার্ক করান উচিৎ নয় যেখানে সরাসরি টায়ারে তাপ লাগে। এরফলে টায়ার ফেটে যাওয়া কিংবা বেন্ড হয়ে যাওয়ার মত সমস্যা দেখা দিতে পারে। এছাড়া যারা টিউব্লেস টায়ার ব্যবহার করেন তারা নির্দিষ্ট সময় পরপর টায়ার জেল পরিবর্তন করুন।

মন্তব্য

About The Author

Related Posts