Suzuki Bangladesh
ইয়ামাহার সাথে এসিআই মোটরস-এর ৪ বছর পূর্তি - দেশি বাইকার

ইয়ামাহার সাথে এসিআই মোটরস-এর ৪ বছর পূর্তি

Tourino Tyres

ইয়ামাহা বিশ্বের অন্যতম প্রিমিয়াম এবং পারফর্মেন্স সমৃদ্ধ জাপানিজ মোটরসাইকেল প্রস্তুতকারক কোম্পানি। যারা তাদের বাইকের কোয়ালিটির জন্য সারা বিশ্বে সমাদৃত। বাংলাদেশে ইয়ামাহা কাজ করে আসছে প্রায় ৪০ বছর থেকে। তবে ২০১৬ সাল থেকে ইয়ামাহা এবং এসিয়াই মোটরস লিমিটেড একত্রে কাজ শুরু করে। ACI Motors Ltd বাংলাদেশে ইয়ামাহা এর সোল ডিস্ট্রিবিউটর হওয়ার পর থেকে ইয়ামাহা ব্রান্ডকে তারা নিয়ে গেছে এক অনন্য উচ্চতায়।

এরপূর্বে কর্ণফুলি গ্রুপ ইয়ামাহার মোটরসাইকেল্গুলো বাংলাদেশে নিয়ে আসত। তবে সেই সময়ে তারা খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। ACI Motors Ltd সর্বপ্রথম FZs FI version লঞ্চ করার মাধ্যমে ইয়ামাহার সাথে তারা যাত্রা শুরু করে। যেটি ছিল বাংলাদেশে প্রথম Fuel Injection সম্বলিত মোটরসাইকেল। লঞ্চ হওয়ার পরই বাইকটি বেশ সাড়া ফেলেছিল মোটরসাইকেল ইন্ডাস্ট্রিজে। লুকস, ইঞ্জিন পার্ফরমেন্স, ব্রেকিং এবং ব্যালেন্সের কারনে বাইকারদের কাছে আকর্ষনের কেন্দ্রবিন্দু ছিল বাইকটি।

ইয়ামাহা এবং এসিয়াই মোটরস একত্রে যাত্রা শুরুর পর থেকেই বাংলাদেশে বিভিন্ন মোটরসাইকেল কালচারের অভ্যাস গড়ে তুলছে, যা এর আগে কোন মোটরসাইকেল কোম্পানি কিংবা ডিস্ট্রিবিউটর করেনি। এরই ধারাবাহিকতায় ACI Motors বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দিবসে বাইকারদের নিয়ে ট্যুর এবং ইভেন্ট করে আসছে।

২০১৭ সালের ২৬শে মার্চ “Use Helmet Ride Safe” স্লোগানে ২০০০+ রাইডার নিয়ে র‍্যালির আয়োজন করে যা ঢাকার বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণের মাধ্যমে রাইডারদের মাঝে হেলমেটের গুরুত্ব তুলে ধরে। একই বছর ঢাকায় প্রথম অনুষ্ঠিত হয় ঢাকা বাইক কার্নিভাল। যেখানে ACI Motors বাইকারদের জন্য বাইক স্ট্যান্ট এবং বিভিন্ন বাইকিং এক্টিভিটির আয়োজন করেছিল। যা ছিল কার্নিভালে বাইকারদের জন্য মূল আকর্ষন।

এর পরের বছর ২০১৮ সালের ২৬শে মার্চ স্বাধীনতার শপথ নামে আরও একটি ইভেন্টের আয়োজন করে ACI Motors. এই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রন জানান হয় বাংলাদেশের বিশিষ্ট লেখক জনাব আনিসুল হককে। উক্ত অনুষ্ঠানে সকল বাইকার এবং অতিথিরা নিরাপদে বাইক রাইড এবং সড়কের সকল নিয়ম মেনে চলার শপথ নেন। সেই ইভেন্টেই সকল বাইকার একত্রিত হয়ে তৈরী করে ‘Biggest Motorcycle Logo’ যেটি নাম লেখায় গিনেস বুক অব রেকর্ডে। এই অর্জনটি শুধুমাত্র ACI Motors এর নয়, যা ছিল বাংলাদেশের সকল বাইকারদের জন্য একটি গর্বের বিষয়। একই বছর ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে আয়োজন করা হয় ইয়ামাহা রাইডিং ফিয়েস্তা। যেখানে বাংলাদেশের বিভিন্ন জিলা থেকে বাইকাররা অংশগ্রহন করেছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে আয়োজন করে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় রাইডিং ইভেন্ট ইয়ামাহা রাইডিং ফিয়েস্তা কক্সবাজার। যেখানে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের প্রায় ৮০০+ বাইকাররা অংশগ্রহন করেছিলেন। ২ দিন ব্যাপী এই ইভেন্টে ছিল বিচ স্পোর্টস, কনসার্ট, ফায়ার স্পিনিং এবং ফায়ার শো সহ বিভিন্ন বাইকিং এক্টিভিটিস। এছাড়া বিভিন্ন সময় দেশের প্রতিকূল মুহূর্তে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে ACI মোটরস এবং তাদের সহযোগিতা করে আসছে তারুণ্য নির্ভর ইয়ামাহা রাইডার্স ক্লাব। আর এভাবেই ACI Motors, ইয়ামাহাকে সাথে নিয়ে একটি নতুন বাইকিং কালচার তৈরী করার চেষ্ঠা করে যাচ্ছে।

বাইকিং এক্টিভিটিসের পাশাপাশি ACI Motors চেষ্ঠা করে আসছে বাইকারদের সর্বোত্তম সেলস আফটার সার্ভিস দেওয়ার জন্য। এজন্য তারা বাংলাদেশে প্রথম নিয়ে আসে Yamaha Diagnostic Tools (YDT) এবং FI Station, যেগুলো একটি Fuel Injection বাইকের সঠিক সার্ভিসের জন্য অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ন। এই টুলসগুলোর মাধ্যমে আপনি যেসকল সুবিধা পাবেন তাহচ্ছে,

  • ইঞ্জেকশন ডিউরেশন
  • ইগনিশন টাইমিং
  • ইঞ্জিন টেমপারেচার বা কুলেন্ট টেম্পারেচার
  • ও-টু সেন্সর ১ ভোল্টেজ
  • ইনটেক এয়ার টেম্পারেচার
  • ইনটেক এয়ার প্রেসার সেন্সর ১
  • থ্রোটল পজিশন সেন্সর ভোল্টেজ
  • এট্মস্ফেরিক প্রেসার সেন্সর
  • ব্যাটারি ভোল্টেজ
  • ইঞ্জিন স্পীড (আর.পি.এম) ইত্যাদি।

এছাড়া ইয়ামাহার প্রতিটি সার্ভিস সেন্টারই 3S মানের অর্থাৎ আপনি এক যায়গাতেই Sales, Service এবং Spare parts পাবেন। এভাবেই ACI Motors এবং Yamaha বাংলাদেশে নতুন বাইকিং কালচার এবং উন্নতমানের সার্ভিস দেওয়ার প্রতিজ্ঞা নিয়ে এগিয়ে চলেছে।

মন্তব্য
Shell Advance

About The Author

Related Posts

error: Content is protected !!
×