TVS Auto Bangladesh
Honda বাজারে নিয়ে এলো নতুন Dream 110 - দেশি বাইকার

Honda বাজারে নিয়ে এলো নতুন Dream 110

বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেড (বিএইচএল) গত ২৩/১২/২০ তারিখে বাংলাদেশে লঞ্চ করে Honda Dream 110. যা ১১০ সিসি সেগমেন্টের বাইক গুলোর মধ্যে আলাদা এক্সক্লুসিভ ডিজাইনে তৈরী।তারা তাদের এই লঞ্চ ইভেন্টটি করে বাংলাদেশ হোন্ডা ফ্যাক্টরীর আব্দুল মোনেম ইকোনমিক জোন, গজারিয়া, মুন্সীগঞ্জ। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেড এর ছিলেন ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং চীফ এক্সকিউটিভ অফিসার হিমিহিকো কাটসুকি।

তিনি অনুষ্ঠানে বলেন, হোন্ডা বাংলাদেশের জনগনের জন্য নিত্যদিনের যান হিসেবে যাতে সকলের হাতের নাগালে পৌঁছে দিতে পারে এই নিয়ে তারা কাজ করছে এবং তারা তাদের মোটরসাইকেলের দাম মানুষের হাতের নাগালে রাখার চেষ্টা করে সবসময়। তিনি আরো বলেন খুব কম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশ হোন্ডা ২ লাখ ইউনিট মোটরসাইকেল উৎপাদন এবং বিক্রির এক মাইলস্টোন গড়েছে, এবং আগামীতেও হোন্ডা এভাবে অসাধারণ কিছু প্রডাক্ট এবং সার্ভিস দিয়ে যাবে কাস্টমারদের।  তিনি বলে এই নতুন Dream 110 বাইকটি বাংলাদেশের রোড কন্ডিশন, দেশের মানুষের এভারেজ হাইট এবং কম খরচে যাতে চালাতে পারে এই ভেবেই এই বাইক তৈরী করা হয়েছে। তারা এই নতুন বাইকটির মূল্য নির্ধারণ করেছেন ৮৯,৯০০/-, যা ১১০ সিসি সেগমেন্টের বাইক গুলোর মধ্যে অনেকটাই কম। তিনি বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানায় তাদের ব্যবসায়িক বন্ধুত্বের জন্য, এবং বাংলাদেশে ধীরে ধীরে মোটরসাইকেল বাজার অনেক বড় হয়ে যাচ্ছে, যা বাংলাদেশের মোটরসাইকেল কোম্পানী এবং দেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া তিনি বলেন প্রতিবেশী দেশ গুলোর তুলনায় বাংলাদেশে মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন ফি প্রায় ৩-৪ গুন বেশি যা এই বাজারের উপর বেশ প্রভাব ফেলে, এটা কমিয়ে আনা উচিৎ বলে তিনি মনে করেন।

নতুন এই হোন্ডা ড্রিম ১১০ বাইকটি ডিজাইন এবং ইঞ্জিনের দিক থেকে অনেক এগিয়ে থাকবে, বিশেষ করে যারা নিত্যদিনের কাজের জন্য বাইক ব্যবহার করে থাকেন তাদের জন্য একদম হাতের নাগালে দাম সহ আধুনিক সব ফিচার সহ এই বাইক। তারা বলেন এই বাইকটি মূলত তৈরী করা হয়েছে এই দেশের রোড কন্ডিশন এবং সকল হাইটের রাইডার কথা ভেবেই। বাংলাদেশ হোন্ডার সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন আমি আশা করি বাংলাদেশের মানুষ এই সাশ্রয়ী মূল্যে বাইকটি পেয়ে অনেক খুশি হবে এবং সকলের উপকারে আসবে। বাইকটিতে লম্বা এবং প্রশস্ত সিট বেশ আরামদায়ক হবে রাইডার এবং পিলিয়ন উভয়ের জন্যেই। এছাড়া বাইকটির আরো বড় একটি সুবিধা হচ্ছে এর মাইলেজ, কেননা এই সেগমেন্টের বাইক গুলো কাষ্টমাররা কিনে ভাল মাইলেজের জন্য, এর মাইলেজ প্রায় ৭৪ কিঃমিঃ/লিটারে পাওয়া যাবে, যা এর অনেক ভাল গুন। বাইকটি ৩টি কালারে বাংলাদেশের সকল অথরাইজড ডীলার পয়েন্টে পাওয়া যাবে লাল/কালো এবং নীল কালারে।

আমাদের কাছে সব মিলিয়ে বাইকটি বেশ ভাল লেগেছে, বিশেষ করে এই ১১০ সিসি সেগমেন্টে এটি বেশ ভাল প্রভাব ফেলবে বলে আশা রাখি। যারা গ্রামে বা শহরের বাইরে নিজেদের কাজের জন্য বাইক ব্যবহার করেন তাদের জন্য নতুন এই Honda Dream 110 হতে পারে ভাল কিছু।

 

মন্তব্য

About The Author

Related Posts

error: Content is protected !!
×