এবার Honda Livo 110 এর দাম কমাল বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেড

দাম কমিয়ে একের পর এক চমক দিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ হোন্ডা প্রাইভেট লিমিটেড। বছরের শুরুতে গত ২ সপ্তাহ আগে হোন্ডা সিবি হর্নেটের দাম দশ হাজার কমিয়ে আনে কোম্পানীটি। এবার তারা দাম কমাল তাদের কমিউটার সেগমেন্টের অন্যতম জনপ্রিয় বাইক Honda Livo 110 এর। আগের থেকে ১৫ হাজার টাকা কমিয়ে এখন লিভো ডিস্ক ভার্সনের দাম নির্ধারিত হয়েছে ১১১,০০০ টাকা এবং লিভো ড্রাম ভার্সনের দাম নির্ধারন করা হয়েছে ১০৫,০০০ টাকা মাত্র।

এই সেগমেন্টে কমিউটার বাইকগুলোর মধ্যে অন্যতম গুড লুকিং বাইক হোন্ডার এই লিভো ১১০ সিসি’র বাইকটি। কমিউটার বাইক হলেও যার মাঝে কিছুটা স্পোর্টি দর্শন পাওয়া যায়। ১০৯.১৯ সিসি’র এই এসআই এয়ার কুলড ইঞ্জিনটি ৮.২৫ বিএইচপি ম্যাক্সিমাম পাওয়ার এবং ৮.৬৩ নিউটন মিটার টর্ক উৎপন্ন করতে সক্ষম। বাইকটিতে রয়েছে ফোর স্পীড গিয়ার বক্স এবং সাথে থাকছে সেলফ ও কিক স্টার্টিং সিস্টেম। বাইকটির ওজন (১১১ কেজি) খুব একটা বেশি নয় তাই অনেকে বাড়তি কম্ফোর্ট পেতে পারে।

Honda Livo এর ডিস্ক এবং ড্রাম ভার্সন মার্কেটে এভেইলেবল। ডিস্ক ব্রেকের সামনের চাকায় ব্যবহার করা হয়েছে ২৪০ মিঃমিঃ এর ডিস্ক ব্রেক এবং পেছনে থাকছে ১৩০ মিঃমিঃ এর ড্রাম ব্রেক। বাইকটির ড্যাশবোর্ডটি সম্পূর্ন এনালক, তবে প্রয়োজনীয় ফিচারগুলো এতে পাবেন। কমিউটার বাইক হিসেবে এর মাইলেজও ভাল যা প্রায় ৬০ কিঃমিঃ/লিটার (সিটি এবং হাইওয়ে মিলে)।

তবে অনেকের আপত্তি এর টায়ারের সাইজ নিয়ে। বাইকটির সামনে এবং পেছনে ৮০/১০০-১৮ সেকশন টায়ার ব্যবহার করা হয়েছে। তবে পজিটিভ দিক হচ্ছে এর টায়ারগুলো টিউবলেস যা এই সেগেমেন্টে এখনো কম দেখা যায়। বাইকটির বেশ কয়েকটি কালারে মার্কেটে পাওয়া যাচ্ছে। হোন্ডার এই কমিউটার মোটরসাইকেলটি খুব অল্প সময়ের মধ্যে মার্কেটে বেশ চাহিদা তৈরী করেছে। দাম আরো কমায় এটির চাহিদা আরো বেশ খানিকটা বাড়বে বলে নিশ্চিত ভাবেই বলা যায়।

হোন্ডার এই দাম কমানোর ট্রেন্ড সত্যি প্রশংসার দাবী রাখে। আমরা চাই হোন্ডার মত অন্যান্য কোম্পানীগুলোও এভাবে আস্তে আস্তে বাইকের দাম কমিয়ে জনগনের নাগালে নিয়ে আসুক।

কিছুদিন আগে মুন্সিগঞ্জে নিজেদের উৎপাদনকেন্দ্র চালু করে হোন্ডা। আর তাই সকলের মাঝে প্রত্যাশা খুব শীঘ্রই হোন্ডা বাংলাদেশে তাদের বাইকগুলোর দাম দিনকে দিন আরো কমিয়ে আনবে।

Related Posts