শেল এবং দেশী-বাইকারের তত্ত্বাবধায়নে রংপুর বিভাগীয় বাইকারদের গ্রান্ড মীটআপ

গত ১২/৮/২০২২ ইং রোজ শুক্রবার রংপুর বিভাগের বাইকেরদের জন্য ছিল একটি স্মরণীয় দিন। এই দিন বাংলাদেশের সব থেকে বড় বাইকিং প্ল্যাটফর্ম দেশী বাইকার ডট কম, রংপুর বিভাগের সকল বাইকিং গ্রুপ ও বাইকারদের নিয়ে আয়োজন করেছিল একটি গ্র্যান্ড মিটআপ। এই প্রোগ্রামে বাইকারদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত। প্রোগ্রামেটি বাইকারদের নিয়ে সুশৃঙ্খল বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও সারা দিন ব্যাপি নানান আয়োজনে সাজানো গোছানো ছিল।

 

দেশী বাইকার আয়োজিত গ্র্যান্ড মিটআপটির পৃষঠপোষকতায় ছিল বাংলাদেশে লিডিং ইঞ্জিং ওয়েল ব্র্যান্ড শেল এবং এড এডভান্সের এর ট্যাগ লাইন “Out Ride Anything” থেকেই এই ইভেন্টের নাম দেয়া হয়েছিল “Outrider”।

এ প্রোগ্রামটি সম্পর্কে বলতে গেলে বলা যায় যে, বাইকারদের কে নিয়ে উত্তরবঙ্গে এই রকম বড় ইভেন্ট এর আগে কখনো হয়নি। সাধারণত বিভিন্ন অটোমোটিভ কোম্পানিগুলো রাজধানী ঢাকা কেন্দ্রিক বিভিন্ন ধরনের বড় বড় প্রোগ্রাম আয়োজন করে থাকে বাইকারদের নিয়ে। যা থেকে বঞ্চিত হয় উত্তরবঙ্গ সহ বাংলাদেশের আনাচে-কানাচে থাকা বিভিন্ন বাইকার। অনেক দিন যাবৎ এই বিষয়টির লক্ষ্য করার পর দেশী বাইকার সিদ্ধান্ত নেয় যে, তারা শুধু রাজধানী নয়, রাজধানীর বাহিরে এবং দেশের আনাচে-কানাচে যেসব বাইকপ্রেমি ও মটো ট্রাভেলার আছে তাদেরকে নিয়ে প্রোগ্রাম করবে। যেই কথা সেই কাজ, দেশী বাইকার প্ল্যান সাজিয়ে ফেলে যে, তারা বাইকারদের কে নিয়ে বিভাগীয় পর্যায়ে ইভেন্ট আয়োজন করবে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রথমে রংপুরে আয়োজন করা হয় গ্র্যান্ড মিটআপ “OUTRIDER” এর। আগামীতে এই প্রোগ্রামটি দেশের বাকি বিভাগগুলোতে আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন দেশি বাইকারের ফাউন্ডার দেওয়ান সোহান । তিনি আরো বলেন, বিশাল পরিসরে প্রোগ্রামটি করার ইচ্ছা থাকলেও, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে ও আগস্ট মাস হওয়ার কারণে প্রোগ্রামটি অপেক্ষাকৃত ছোট করতে হয়েছে। ইনশা আল্লাহ আগামীতে আরো বড় পরিসরে এই ধরনের প্রোগ্রাম গুলো আয়োজন করা হবে। সেই সাথে তিনি বাংলাদেশের অটোমোটিভ কোম্পানিগুলোকেও বিভাগীয় পর্যায়ে বাইকারদের কে নিয়ে এরকম ইভেন্ট করার জন্য আমন্ত্রণ জানান।

আসুন সংক্ষেপে জেনে নেই প্রোগ্রামটিতে কি কি আয়োজন ছিল।

সকাল: প্রোগ্রামটি শুরু হয় রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলার বাইকারদের আগমন ও রেজিস্ট্রেশন এর মাধ্যমে। রেজিস্ট্রেশনকৃত প্রত্যেকজন বাইকারের জন্য ছিল দেশি বাইকার ও শেলের কো-ব্রান্ডিং আকর্ষণীয় টি শার্ট। রেজিস্ট্রেশন করার সময় বাইকারদেরকে দিয়ে দেওয়া হয় সকালের খাবার, দুপুরের খাবার, সন্ধ্যার নাস্তা ও লটারীর কুপন।

রেজিস্ট্রেশন ও সকালের নাস্তার পর্ব শেষে এই প্রোগ্রামের অন্যতম আকর্ষণ র‍্যালির জন্য সবাই বেরিয়ে পরেন। প্রায় ১৬০ টিরও অধিক বাইক নিয়ে অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে উক্ত র‍্যালীটি সম্পূর্ণ হয়।

দুপুর: র‍্যালি শেষে বাইকাররা হল রুমে চলে আসেন এবং পরিচয় পর্ব শুরু হয়ে যায়। এ সময় মতামত ব্যক্ত করেন দেশি বাইকারের ফাউন্ডার দেওয়ান সোহান। আরো বক্তব্য রাখেন র‍্যাঙ্কস পেট্রোলিয়াম লিমিটেড এর হেড অফ মার্কেটিং জনাব নাবিল হোসাইন।দুপুর ১২:৪৫ এর দিকে নামাজ ও দুপুরের খাবারের জন্য বিরতি দেয়া হয়।

দুপুরে খাবার পর্ব শেষ করে ঠিক ৩:০০ এ আবার প্রোগ্রামটি শুরু হয়। এ পর্যায়ে কৌতুক নিয়ে হাজির হয় রংপুরের ছেলে জয়। এর মাঝে উপস্থিত হন মিরাক্কেল সিজন সিক্স এর চ্যাম্পিয়ন আবু হেনা রনি। তাদের কৌতুকে হেসে খেলেই সময় পার হতে থাক। এ সময়ে দেশি বাইকার এর মেন্টর কোর্ডিনেটরদের পরিচয় পর্ব ও র‍্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। এরপর একটি ছোট নাস্তার ব্রেক দেওয়া হয়।

সন্ধ্যা: সন্ধ্যায় দেশী বাইকার অফিসিয়াল ফেসবুক গ্রুপের ৪ লক্ষ মেম্বার এর বিশাল পরিবারে পরিণত হওয়ায় কেক কেটে সেলিব্রেশন করা হয়।

এর পর অনুষ্ঠিত হয় কুইক কুইজ। এছাড়াও এ সময় কুইক কুইজ ও র‍্যাফেল ড্র তে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এরপরে মঞ্চ মাতাতে আসেন সুদূর কক্সবাজার থেকে আগত দেশি বাইকার এর পুরনো সদস্য রিশাত বাবু। তার গানে নেচে ওঠেন সবাই। এই ফাঁকে ইভেন্টটিকে আরো সুন্দর করতে উপস্থিত হয়, এই প্রোগ্রামের অন্যতম আকর্ষণ ডিজে পরী। রিশাত বাবুর গান শেষ হওয়ার পরপরই সবাইকে নাচাতে হাজির হয় ডিজে পরী। তার গানের মিক্সিং এর সাথে তাল মিলিয়ে নেচে গেয়ে শেষ হয় “OUTRIDER” প্রোগ্রামটি।

উক্ত প্রোগ্রামটি রংপুরের, তথাপি উত্তরের বাইকার ও বাংলাদেশের বাইকিং কালচারকে করেছে মহিমান্বিত।

ধন্যবাদ দেশী-বাইকার টিমকে, উত্তরের বাইকারদেরকে মূল্যায়ন করার জন্য। এই গ্র্যান্ড মিটআপটি একটি মিসাইল হয়ে থাকবে রংপুরের বাইকারদের কাছে। আপনারা আবারও প্রমাণ করে দিলেন যে, দেশী বাইকারই সেরা ও আপনারাই নাম্বার ওয়ান।

অলি আহাদ খান
অলি আহাদ খান এর সর্বশেষ লেখাগুলি (see all)

Related Posts

Add Comment