TVS Auto Bangladesh
TVS বাজারে নিয়ে এলো Apache RTR 160 4V এর নতুন ভার্সন - দেশি বাইকার

TVS বাজারে নিয়ে এলো Apache RTR 160 4V এর নতুন ভার্সন

TVS বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় ও শীর্ষস্থানীয় মোটরসাইকেল প্রস্তুতকারক সংস্থা। তারা বাংলাদেশের মোটরসাইকেল মার্কেটে ২৪% মার্কেট শেয়ার নিয়ে এবং ২য় সর্বোচ্চ বিক্রেতা হিসেবে অবস্থান করছে। ভারতীয় এই কোম্পানী তাদের বিভিন্ন রকম কালেকশন ও অনেক প্রকার মোটরসাইকেল নিয়ে বাজারে স্থান করে নিয়েছে। কমিউটার সেগমেন্ট থেকে স্পোর্টস সেগমেন্ট সব যায়গাতেই তারা তাদের বাইক দিয়ে রাজত্ব করে আসছে দীর্ঘদিন থেকে।

TVS Apache RTR 160 4V অনেক আগে থেকেই বাজারে বেশ ভাল একটা অবস্থান নিয়ে আসছে দেশের বাজারে, তবে এই বাইকের প্রতি শুরু থেকেই একটা অভিযোগ ছিলো এর ব্রেকিং এবং কন্ট্রোলিং নিয়ে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা এই বিষয়টি মাথায় রেখে তাদের বড় সমস্যাটি সমাধানের চেষ্টা করে আগের ভার্সন গুলোর চেয়ে ভাল ব্রেকিং সিস্টেম দিয়ে বাজারে নিয়ে আসে। এবং অবশেষে টিভিএস বাংলাদেশ TVS Apache RTR 160 4V এর নতুন সংস্করণ এবং সর্বশেষ আপডেট মডেল বাজারে নিয়ে এলো। নতুন এই বাইকটিতে তারা বেশ নতুন ও আধুনিক কিছু প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে।

TVS RTR শুধু বাংলাদেশ নয় প্রতিবেশী দেশ ভারতেও সর্বোচ্চ বিক্রির সাড়া ফেলে এবং অন্যতম জনপ্রিয় একটি বাইক হয়ে যায়। তারা তাদের শুরু করে Apache RTR 150 দিয়ে তখন তাদের সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ছিলো বাজাজ পালসার ১৫০। এবং বেশ কয়েক বছরের মধ্যে তারা ১৫০ থেকে ১৬০ সিসি সেগমেন্টে চলে যায়, আর বাজারে নিয়ে স্পিড স্টার খ্যাত Apache RTR 160 4V, শুধু তাই নয় তারা তাদের ১৫০ সিসি RTR উৎপাদন বন্ধ করে তারা সেটিকে ১৬০ সিসিতে রূপান্তর করে ফেলে। Apache RTR সিরিজ মূলত পরিচিত এর এক্সিলারেশন এবং স্পিড দিয়ে, এটি এর মূল বিশেষত্ব।

নতুন এই 4V তে ব্যবহার করা হয়েছে এর ২০০সিসি 4V একই হেডলাইট এবং ড্যাশবোর্ড দিয়ে। এর হেডলাইট সেটিংসটি আগের ভার্সনের চেয়ে আরো বেশি আকর্ষনীয় ও এগ্রেসিভ লুক দিয়েছে বাইকটিকে। এর পার্কিং লাইট গুলো এখন হেডলাইটের বাইরে দেয়া হয়েছে যা দেখতে অনেকটা ভয়ংকর পশুর মতো দেখায়, যা এর লুক কে আরো এগ্রেসিভ একটা ভাব দিয়েছে। এর ড্যাশবোর্ডটি যদিও আগের ভার্সনটির মতোই দেখায় কিন্তু এতে নতুন করে যুক্ত করা হয়েছে একটি আধুনিক ফিচার যার নাম দিয়েছে  TVS Smart XConnect, এটি ব্লুটুথের মাধ্যমে এন্ড্রোয়েড ফোনের সাথে যুক্ত করে নিলে বাইকের সকল প্রয়োজনীয় তথ্য ফোনে দেখাবে। যেখানে রয়েছে-

  • পেট্রোল পাম্প নেভিগেশন
  • আপনাকে আপনার পথ প্রদর্শন করবে
  • TVS Connet App
  • রেস টেলিমেট্রি
  • ফোন কল/এসএমএস এলার্ট
  • লো ফুয়েল ওয়ার্নিং।

শুধু তাই নয় নতুন এই ভার্সটিতে থাকছে ইউরো গ্রিপ স্পোর্টস রেসিং রেডিয়াল টায়ার এবং এর ফুয়েল ট্যাংকের নিচে রেস ট্রাকের গ্রাফিক্স। এই রেসিং রেডিয়াল টায়ার মূলত ব্যবহার হয়ে থাকে রেস ট্রাকে ভাল গ্রিপের জন্য যা থেকে ভাল গ্রিপ ও কনফিডেন্স পাওয়া যায়। এতে আগের ভার্সনের চেয়ে আরামদায়ক সিট ব্যবহার করা হয়েছে যা আপনাকে রাইডিং এর সময় বেশ আরাম দিবে। এইসব ছাড়া এর ইঞ্জিন কার্যকারিতা, সাস্পেনশন সেটাপ, এবং এর ডিজাইনে আর কোনো পরিবর্তন আসে নি।

TVS Apache RTR 160 4V তে ব্যবহার করা হয়েছে ১৫৯.৭ সিসি এর পাওয়ারফুল একটি ইঞ্জিন। এতে ব্যবহার করা হয়েছে কার্বুরেটর ফুয়েল সিস্টেম। বাইকের ইঞ্জিনটি সিঙ্গেল সিলেন্ডার 4 Stork এর যা আপনাকে ৮০০০ আর পি এম এ 16.28 Max Power, এবং ৬৫০০ আরপিএম এ 14.8 Nm Max Torque প্রদান করে। এতে Ram air assist এর সাথে একটি অয়েল কুলিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে। এতে সেলফ এবং কিক স্টার্ট দুটিই রয়েছে। Apache RTR 160 4V বাইকটিতে ভাল মানের প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে যা এর এক্সিলারেশন খুব দ্রুত উঠতে সাহায্য করে এবং এর টপ স্পিড প্রায় ১৩২ কিঃমিঃ/ঘন্টায় এর বেশি।

মন্তব্য

About The Author

Related Posts

error: Content is protected !!
×