ট্রাফিক আইন অনুযায়ী কোন অপরাধে কত জরিমানা [ধারা সহ বিস্তারিত]

ট্রাফিক আইন অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ন একটি জিনিস এবং ট্রাফিক আইন সম্পর্কে ধারনা রাখা অত্যান্ত জরুরী। বিশেষ করে বাইকারদের যাদের সবসময় রাস্তায় থাকতে হয় তাদের ট্রাফিক আইন সম্পর্কে জ্ঞান থাকলে তারা রাস্তায় ভুলগুলো এড়িয়ে চলেন এবং জরিমানার হাত থেকে বেঁচে যাবেন। তাছাড়া ট্রাফিক আইন গুলো জানলে আপনি অনেক দুর্ঘটনা থেকে বেচে যাবেন। আসুন আমরা জেনে নেই ট্রাফিক আইন ভঙ্গের মামলা এর জরিমানা।

  • ধারা ১৩৭ – সাধারণ জরিমানা – ২০০ টাকা
  • ধারা ১৩৯ – হাইড্রলিক হর্ন ব্যবহার – ১০০ টাকা
  • ধারা ১৪০ – পুলিশের আদেশ অমান্য করা – ৫০০ টাকা (বিশেষ জরিমানার আওতাভুক্ত)
  • ধারা ১৪০ – লাল সিগন্যাল অমান্য করা – ৫০০ টাকা (বিশেষ জরিমানার আওতাভুক্ত)
  • ধারা ১৪২ – ঝুঁকিপুর্ন চালনা ও সর্বচ্চো গতিসীমা লংঘন করলে – ৩০০ টাকা
  • ধারা ১৪৬ – দুর্ঘটনাজনিত জরিমানা – ৫০০ টাকা
  • ধারা ১৪৯ – নিরাপত্তা ছাড়া বাইক চালালে ( যেমন, হেলমেট না থাকা, ব্যাক লাইট, ইন্ডিকেটর, লুকিং গ্লাস, ব্রেক লাইন্ট ইত্যাদি না থাকলে, দুই জনের বেশি সহযাত্রী থাকলে এবং সহযাত্রীর হেলমেট না থাকলে) – ৩০০ টাকা জরিমানা
  • ধারা ১৫০ – কালো ধোয়া অথবা পরিবেশ দূষন করে এমন ধোয়া সৃষ্টি করলে – ২০০ টাকা
  • ধারা ১৫১ – অসংলগ্নভাবে কার মোডিফাই করলে – ১২৫০ টাকা
  • ধারা ১৫২ – রেজিস্ট্রেশন, রুট পারমিট ও ফিটনেস বিহীন বাইক চালালে – ৭০০ টাকা
  • ধারা ১৫৪ – কার বা গাড়িতে নির্দিষ্ট ওজনের চেয়ে বেশি মালামাল বহন করলে – ৫০০ টাকা
  • ধারা ১৫৫ – ইন্সুরেন্স ছাড়া রাস্তায় বের হলে বা ইন্সুরেন্সের মেয়াদউত্তীর্ন হলে – ৫০০ টাকা
  • ধারা ১৫৬ – মোটরযান কতৃপক্ষর অনুমোদন ছাড়া মোটরযান নিয়ে বের হলে – ৫০০ টাকা
  • ধারা – ১৫৭ – রাস্তা আটকিয়ে রাখলে বা রাস্তা আটকিয়ে মোটরযান ঠিক করলে – ২৫০ টাকা
  • ধারা – ১৫৮ – কারের স্পিড গভর্নর সীল না থাকলে – ২৫০ টাকা
  • ধারা – ০০০ – লেন অমান্য করলে – ৫০০ টাকা

ট্রাফিক আইন অমান্য করলে উপরোক্ত ধারা সমূহের আওতায় এই পরিমান টাকা জরিমানা হতে পারে, তাছাড়া উপরোক্ত সকল ধারা মোতাবেক যদি হলুদ জ্যাকেট পরিহিত দায়িত্বরত সার্জেন্ট যদি জরিমানা করে তাহলে জরিমানার টাকা দ্বিগুণ প্রদান করতে হবে। এই হল ট্রাফিক আইনের ধারা ও জরিমানা।

About The Author

Related Posts

error: Content is protected !!