Suzuki Bangladesh
স্বাধীনতা দিবসে ইয়ামাহা রাইডার্স ক্লাবের ব্যতিক্রমধর্মী সচেতনতামূলক উদ্যোগ

স্বাধীনতা দিবসে ইয়ামাহা রাইডার্স ক্লাবের ব্যতিক্রমধর্মী সচেতনতামূলক উদ্যোগ

Tourino Tyres

ইয়ামাহা বাংলাদেশের একটি নামকরা মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড তারা বার বার মানুষের মন জয় করে নিয়েছে তাদের অসাধারন ফিচারের মোটরবাইক নিয়ে। বাংলাদেশে এসিআই মোটরস লিমিটেড ইয়ামাহা মোটরসাইকেল বাজারজাত করে থাকে। এসিআই মোটরস বরাবরই তরুন বাইকারদের নিয়ে বিভিন্ন কাজ করে থাকে এবং তাদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্যমনী থাকে বাংলাদেশের তরুনেরা। এবার মাহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে ইয়ামাহা রাইডার্স ক্লাবের আয়োজনে, এসিআই মোটরস এর সহযোগীতায় আয়োজিত হয়েছিলো ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগের।

২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস, বাঙ্গালী সত্তার একটি মহান দিন। এই দিনে আমরা শহীদদের আত্মত্যাগের প্রতি সম্মান জানাই, এই সম্মান জানাতে গিয়ে আমরা বিভিন্ন আকারের জাতীয় পতাকা বহন করে র‍্যালী সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেই। দিন শেষে জাতীয় পতাকার কোন খোঁজ থাকে না, যেখানে সেখানে পড়ে থাকে আমাদের বহনকৃত পতাকা। এটা আমাদের অজ্ঞতাবশত হয়ে থাকলেও জাতীয় পতাকার জন্য সম্মানের অবমাননাকর। জাতীয় পতাকা আমাদের অত্যান্ত সম্মানের বস্তু এবং এর সঠিক রক্ষানাবেক্ষন করা আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য যা দিনশেষে আমরা অনেকেই করতে ব্যর্থ হই। যার ফলাফল যেখানে সেখানে পড়ে থাকে অনেক জাতীয় পতাকা।

জাতীয় পতাকার সম্মান রক্ষার্থে এবার ইয়ামাহা রাইডার্স ক্লাব, বাংলাদেশ গত ২৬ শে মার্চ আয়োজন করে এক ব্যতীক্রম উদ্যোগের। তারা জাতীয় পতাকার সম্মান রক্ষার্থে, গত ২৬ শে মার্চ ঢাকার বিভিন্ন স্থানে পড়ে থাকা জাতীয় পতাকা সংগ্রহ করে এবং সংবিধানের নিয়ম অনুযায়ী যথা স্থানে সম্মানের সাথে সমাহিত করেন। শুধু এবারই প্রথম নয় ইয়ামাহা রাইডার্স ক্লাব, বাংলাদেশ গত ১৬ ই ডিসেম্বর একই উদ্যোগ গ্রহন করেছিলো।

২৬ শে মার্চের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এসিআই মোটরস লিমিটেডের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর জনাব সুব্রত রঞ্জন দাস। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের অত্যন্ত জনপ্রিয় লেখক ও সাংবাদিক আনিসুল হক সহ বিভিন্ন বাইকিং গ্রুপের সদস্যবৃন্দ।

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে জনাব সুব্রত রঞ্জন দাস বলেন, “আমরা জানি স্বাধীনতা দিবস অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ন দিন। এইদিনে আমাদের ইয়ামাহা রাইডার ক্লাবের আমন্ত্রনে সব বাইকাররা একটা ক্যাম্পেইন করছি, বিভিন্ন জাতীয় দিবসে আমরা জাতীয় পতাকা ব্যবহার করি এবং ব্যবহার করার পরে সচেতনভাবে আমরা এটা সমাহিত করি না, গত ১৬ ই ডিসেম্বর আমরা এরকম একটি উদ্যোগ গ্রহন করেছিলাম এবং অনেক ভালো প্রতিক্রিয়া পেয়েছি এবং অনলাইনেও এর প্রতিক্রিয়া ছিলো ব্যপক হারে। এবারো আজকে ঢাকা শহরের চারটা পয়েন্ট সহ আরো চারটা বিভাগে ইয়ামাহা রাইডার্স ক্লাবের উদ্যোগে আমরা এই পড়ে থাকা ও অব্যবহারিত জাতীয় পতাকা সমাহিত করার দায়িত্ব নিয়েছি। আসলে আমরা চাই জাতীয় পতাকার সম্মান রক্ষা করতে এবং এবার আমরা দেখছি গত বছরের চেয়ে কম পতাকা পড়ে আছে। এই কাজে আমরা তরুনদের ব্যাপক সাড়া পেয়ছি”। এছাড়াও তিনি বাইকারদের প্রয়োজন ও সচেতনতা সম্পর্কে কথা বলেন।

ইয়ামাহার সারাদিন ব্যাপী এই অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন বাইকার সহ আরোও অনেকে। বাইকারদের সচেতনতার জন্য ইয়ামাহা বরাবরই কাজ করে থাকে এবং এবার ইয়ামাহা রাইডার্স ক্লাবের এই ভিন্নধর্মী আয়োজন সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছে।

মন্তব্য
Shell Advance

About The Author

Related Posts

error: Content is protected !!
×