TVS Auto Bangladesh
Shell Advance Ultra 10W40 ইউজার রিভিউ (লিখেছেন- আবু তালহা) - দেশি বাইকার

Shell Advance Ultra 10W40 ইউজার রিভিউ (লিখেছেন- আবু তালহা)

ইঞ্জিন অয়েল রিভিউঃ
আসসালামু আলাইকুম, আমি আবু তালহা।আজকে আপনাদের সামনে আন্তর্জাতিক বাজারের সুনামধন্য একটা ইন্জিন ওয়েলের সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো এবং এটার ভালো দিক ও মন্দ দিকগুলো আপনাদের মাঝে তুলে ধরার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

 

আমি Yamaha Fzs V2.0 বাইকটি ইউজ করেছি ১৯,০০০ হাজার কিলোমিটার প্রায়,এর মাঝে আমি ১ম ১০,০০০ কিলোমিটার মিনালের ওয়েল ইউজ করেছি তার পর থেকে আমি সেন্থেটিক ওয়েল ইউজ করে আসছি। এবং সর্বশেষ আমি Shell Advance 10w40 ওয়েলটি ইউজ করেছি,এবং এটা দিয়ে আমি এখন পর্যন্ত ১৯০০০ + কিলোমিটার ইউজ করেছি।।এবং এটার রিভিউ নিয়েই আপনাদের জানবো।
Engine Oil specification-
Name: Shell Advance Ultra
Grade:10W-40 fully synthetic
Technology: Pureplus
Manufactured by: The shell Company of Thailand Ltd.

 

ভাল মানের ইঞ্জিন অয়েল একটি মোটরসাইকেলের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ কারণ এটি ইঞ্জিনের কর্মদক্ষতা ও জীবনী শক্তি বাড়ায়। Shell Advance 4T Ultra 10W40 তার ব্যাতিক্রম না।প্রতিটা ইন্জিন ওয়েলে যে যে ভালো দিক গুলো থাকার কথা,এবং এর মাঝে যা যা পেয়েছি সেগুলো আমি তুলে ধরছি।
যেমন-
১.স্মুথনেসঃএই ওয়েলটিতে ১ম ২০০০ কিলোমিটার আমি প্রচুর স্মুথনেস পেয়েছি,গিয়ার সিফটিং এতটা সফট ছিলো যা এক কথায় অসাধারণ।
২.ওভার হিটিং ইস্যুঃএই ইন্জিন ওয়েল টিতে প্রতিটি ইন্জিন ওয়েলই কিছুটা ওভার হিটিং ইসু থাকে,কিন্তু বাজারের আন্য আরও কয়েকটি ওয়েল থেকে এটাতে তুলনা করলে ওভার হিটিং ইসু নেই বললেই চলে।।যা আমার কাছে সব থেকে বেশি ভালো লেগেছে।
৩.ইন্জিন সাউন্ডঃএক এক ধরনের ইঞ্জিল অয়েল একেক একেক রকম সাউন্ড দিয়ে থাকে, কিন্তু আমার বাইক ১৬০০০ কিলোমিটার পরেও আমার ইন্জিন থেকে নতুনের মত একটা সাউন্ড পেয়েছি, এবং ভালো স্মুথনেস ছিলো।
৪.রেডি থ্রোটলঃআমার এফজেড বাইকে আমি অনেক ইন্জিন ওয়েল ইউজ করেছে, কিন্তু সেল ইউজের পর থেকে আমি তুলনামুলক অনেক বেশি রেস্পন্স পেরেছি যা আমারে রিতি মত অবাক করেছে, দেশের বাজারে সব থেকে কম থ্রটল রেসপন্স ওয়ালা একটা বাইক যে সেল ইউজের পরে এই পরিমান রেস্পন্স করবে সেটা আমাকে প্রতিটি রাইডেই ভাবিয়েছে।
৫.টপ মাইলেজঃএই ওয়েলটি ব্যাবহারের পর থেকেই আমি তুলনামূলক কিছুটা মাইলেজ বেশি পেয়েছি,যেখানে মনোমুগ্ধকর স্মুথনেস সেখানে মাইলেজ কিছুটা বেশি দিবে এটাই স্বাভাবিক। আলহামদুলিল্লাহ আমি কিছুটা মাইলেজ বেশি পেয়েছি।
৬.প্রাইজঃএটা বাজারের অন্য সব সেন্থেটিক ওয়েলের থেকে তুলনামুলক কম দাম হলেও,কিন্তু এর কার্যকারিতা আর কর্মদক্ষতা কেনো অংশে কম না।
(দাম বেশি হলেই জিনিস ভালো এমন শব্দ আমি সব সময় এরিয়ে চলি)।

 

সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হচ্ছে সেলের এই ওয়েলটি দিয়ে আমি ননস্টপ ৩০০ কিলোমিটার চালিয়েছি শুধুমাত্র এর রেসপন্স দেখার আশায়, ইনশাআল্লাহ এটা রিতিমত আমাকে অবাক করেছে,শুরু থেকে শেষ ওর্যন্ত এটার পার্ফোমেন্স ছিলো সত্যি মনোমুগ্ধকর। উপরিউক্ত বিষয় গুলো আমার কাছে ভালো দিক মনে হয়েছে।।আর এটা সম্পন্ন আমার নিজস্ব মতামত।
এই ইন্জিন ওয়েলে যে যে সমস্যাও গুলো আমার কাছে মনে হয়েছে সেগুলো আমি তুলে ধরছি। যেমন-
১. top speed কিছুটা কম পেয়েছি,যা আমাকে এর স্মুথনেস নিয়ে পুষিয়ে দিয়েছে,কারণ আমার কাছে টপ স্পিড থেকে স্মুথনেস টাই বেশি অগ্রাধিকার পাবে।
. কিন্তু ১৭০০ কিলোমিটার পরে ১ম গিয়ারে ইন্জিন রেস্পন্স কিছুটা কম এবং জ্যাম জ্যাম লেগেছে,আমার কাছে।
৩. এই ইন্জিল অয়েল টি দিয়ে কিছুটা কম কিলোমিটার চালানো যাবে,(আমার এটা এখন পর্যন্ত ১৯০০ চলেছে)যার একমাত্র কারণ বাংলাদেশের রোড কন্ডিশন, প্রচুর ব্রেকিং,ঘনঘন ক্লাস চাপা এগুলোর কারণেই মুলত যে কোন দেশের তুলনায় বাংলাদেশে কিছুটা কম কিলোমিটার রাইড করা হয়ে থাকে।।
আমি আশা রাখি এটি দিয়ে আমি( ২২০০-২৫০০) রাইড করতে পারবো ইনশাআল্লাহ।
অভারঅলঃ বাজারের অনেক ইন্জিন ওয়েল আমি ইউজ করেছি, এবং এটা থেকে যদি আমি আমার মতামত জানাই তাহলে আমি বলবো এটা আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে,ইনশাআল্লাহ আমি পরোবর্তীতে এটা আমি আবার ইউজ করবো, এবং আশা রাখি আমি আরও বেশি দোষ গুন জানতে এবং আপনাদের মাঝে তুলে ধরবো ইনশাআল্লাহ।
ভুল ভ্রান্তি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

আমার জন্য দোয়া করবেন,সবার জন্য হৃদয়ের অন্তস্তল থেকে অনেক অনেক দোয়া ভালোবাসা আর শুভ কামনা।

লিখেছেন- আবু তালহা

মন্তব্য

About The Author

Related Posts

error: Content is protected !!
×