ঈদে মোটরসাইকেলে বাড়ি যাওয়া নয়!

এবারের ঈদুল ফিতরের আগে-পরের কয়েক দিন মহাসড়কগুলোতে মোটরসাইকেল চলাচল নিয়ন্ত্রিত করা হবে বলে জানিয়েছে হাইওয়ে পুলিশ। বিশেষ করে যারা দূরপাল্লার ভ্রমণে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হবেন তাঁদের ঢাকার প্রবেশপথগুলোতেই আটকে দেওয়া হবে।

পুলিশের হাইওয়ে রেঞ্জের মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) আতিকুল ইসলাম আজ বুধবার তাঁর কার্যালয়ে প্রথম আলোকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।
হাইওয়ে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, প্রতি ঈদেই মহাসড়কে মোটরসাইকেল চালাতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয় বহু মানুষ। প্রাণও যায় অনেকের। আর প্রাণে বাঁচলেও সারা জীবনের জন্য পঙ্গুত্বের শিকার হয় অনেকেই।
হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি আতিকুল ইসলাম বলেন, দেখা যায় ঈদের আগে বাসে-ট্রেনে টিকিট না পেয়ে অনেকেই এক শর বেশি কিলোমিটার দূরে গ্রামের বাড়িতে যেতে মোটরসাইকেল চেপে বসেন। ঈদের এই ভিড়বাট্টার মধ্যে মোটরসাইকেল চালানো চাট্টিখানি কথা নয়। তা ছাড়া রোজা রেখে অনেক লম্বা দূরত্ব পাড়ি দেওয়ার ঝক্কিটাও কম নয়। সবাই মনঃসংযোগ ধরে রাখতে পারেন না। তাই এবার ঢাকা থেকে বের হওয়ার পথগুলোতে হাইওয়ে পুলিশ সদস্যরা মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণের কাজ করবে।
হাইওয়ে পুলিশের আরেকজন কর্মকর্তা বলেন, ঈদের সময় যানজট তৈরি হয়। দীর্ঘসময় যানজটে বসে থেকে বড় যানবাহনগুলোর চালকেরা বেপরোয়া চালান। তা ছাড়া এবার ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কসহ অনেকগুলো সড়কের উন্নয়নকাজ চলছে। নরম মাটি, নুড়ি পাথরের রাস্তা মোটরসাইকেলের জন্য বিপজ্জনক। সবদিক চিন্তা করে চন্দ্রা মোড়, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দি—এসব এলাকায় হাইওয়ে পুলিশ মোটরসাইকেল চলাচল নিয়ন্ত্রণ করবে।
ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘এমনও দেখা গেছে, বন্ধুরা মিলে ঈদের সময় অ্যাডভেঞ্চার করার জন্য মহাসড়কে বের হয়ে বড় দুর্ঘটনায় পড়েছেন। আর প্রতিবছরই একটি মুঠোফোন কোম্পানির ঈদের বাড়ি ফেরার বিজ্ঞাপনে মোটরসাইকেলে একটি পরিবার বাড়ি যাচ্ছে এমন দৃশ্য দেখানো হয়। এবার আমরা তাদের অনুরোধ জানাব ওই বিজ্ঞাপনটি প্রচার না করতে।’

 

উৎস: প্রথম-আলো

About The Author

Related Posts

Add Comment

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: