১৬৫ – ২৫০ সিসি পর্যন্ত ৪টি বাইক নেপালে লঞ্চ করেছে রানার

Tourino Tyres

আমরা জাতি হিসেবে হতভাগা বলতে হবে কারণ ১৬০ সিসির অধিক বেশি বাইক চালানোর অধিকার আমাদের নেই। দেশেই উৎপাদিত রানার আজ বিদেশের মাটিতে অধিক সিসি’র বাইক রপ্তানি করছে, আর আমরা তার দর্শক।

বেশ চড়াই উৎড়াই পেড়িয়ে কিছু দিন আগে বাংলাদেশে সিসি লিমিট ১৫০ থেকে ১৬০-এ উন্নিত করা হয়েছে। বেশি সিসি’র বাইক মানে যে শুধু বেশি গতি নয় বরং ভাল ব্রেকিং এই বিষয়টি দেশের কর্নধাররা কবে বুঝতে পারবে তার আশায় দেশের লাখো মোটরসাইকেল প্রেমীরা।

বিগত দুই বাজেটে দেশে উৎপাদিত মোটরসাইকেল কোম্পানীগুলোকে উৎসাহ দিতে সরকার দেশে উৎপাদিত পণ্যের উপড় ভ্যাট, ট্যাক্স কমিয়ে আনে আর এই সুযোগ বেশ চাঙ্গা করে দেশীয় উৎপাদকগুলোকে যাদের মধ্যে রানার অন্যতম। এখনো কিছু যন্ত্রাংশ বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানী করে থাকলেও দিনকে দিন নিজেদের উৎপাদন দক্ষতা বাড়িয়ে চলেছে রানার।

গত মাসে রানার ৫০০ সিসি পর্যন্ত মোটরসাইকেল বিদেশের রপ্তানী করার অনুমতি পেয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় নেপালে লঞ্চ করে ৪টি ১৬৫ সিসি থেকে শুরু করে ২৫০ সিসি পর্যন্ত মোটরসাইকেল। নেপালে রানারের ডিস্ট্রিবিউটর রামান মোটরস মোট ৫ টি ভিন্ন ধাচের বাইক লঞ্চ করেছে যার মধ্যে রয়েছে ফুল ফেয়ারড স্পোর্টস, অফ-রোড, স্ট্রিট বাইক এবং স্কুটার।

২৫০ সিসি’র ফুল ফেয়ারড স্পোর্টস বাইকটি Runner Dominator 250 যা ১৬.৫ Kw @৮৫০০ rpm পাওয়ার এবং ২০ Nm টর্ক উৎপন্ন করতে সক্ষম। স্পোর্টস এন্ড এগ্রিসিভ লুক, স্টাইল এবং এরোডাইনামিক বডি স্ট্রাকচারের কারণে বাজারে বেশ চাহিদা ফেলবে বলে আশা করছে রানার। মনো-সাসপেনশন ব্যবহৃত বাইকটিতে রয়েছে ডুয়েল সাইল্যান্সার যা এটিতে বাড়তি আকর্ষণ যুক্ত করেছে। ১৫০ mm গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স হওয়ায় অফ-রোডিংয়ের জন্যও বাইকটি উপযোগী।

Hawk 200 একটি অফ-রোড বাইক যা ৯ Kw @৭০০০ rpm শক্তি এবং ১১.৫ Nm টর্ক উৎপন্ন করতে পারে। ফোর স্ট্রোক, এয়ার কুলড, পেট্রোল ইঞ্জিনের এই ডার্ট বাইকটিতে রয়েছে ডাবল ডিস্ক ব্রেকিং সিস্টেম। বাইকটির গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স ১৫৫ mm. এই ২টি কালার নেপালে এভাইলেবল।

Rodeo 165 একটি ক্যাফে রেসার টাইপ মোটরসাইকেল যার হেডলাইট থেকে শুরু করে পুরো ডিজাইন কন্সেপ্টটি বেশ চমৎকার। ডাবল ডিস্ক ব্রেকিং সম্বলিত বাইকটির ফুয়েল ট্যাংক ১৩ লিটার পর্যন্ত ফুয়েল ধারণ করতে পারে।

Runner Rodeo 165

Fireblade 165 একটি ন্যাকেট স্ট্রিট ফাইটার টাইপ বাইক। এর ইঞ্জিন ১০ kw মাক্স পাওয়ার এবং ১১.৫ Nm টর্ক উৎপন্ন করতে সক্ষম। ফায়ারব্লেডের বিশেষ দিকটি হচ্ছে এটি ১৮ লিটার পর্যন্ত ফুয়েল ধারণ করতে সক্ষম। সিটি, হাইওয়ে এবং অফ-রোড রাইডিং, যে কোন অবস্থার জন্য বাইকটি উপযোগী।

Runner Fireblade 165

এছাড়াও একটি ১১০ সিসি’র রানারের স্কুটার লঞ্চ করা হয়েছে নেপালের বাজারের যেটি হচ্ছে Moto 110.

মন্তব্য

About The Author

Related Posts

error: Content is protected !!